চুয়াডাঙ্গা

Back to Posts

চুয়াডাঙ্গা

দেশের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের সীমান্তবর্তী জনপদ চুয়াডাঙ্গা জেলা। উত্তর-পশ্চিমে মেহেরপুর, উত্তর-পূর্বে কুষ্টিয়া, দক্ষিণ ও দক্ষিণ-পূর্বে ঝিনাইদহ এবং পশ্চিমে ভারতের পশ্চিমবঙ্গ বেষ্টিত এই জনপদ রাজধানী ঢাকা হতে প্রায় ২৫০ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত। মাথাভাঙ্গা, ভৈরব, কুমার ও নবগঙ্গা নদীর পলল সমৃদ্ধ অববাহিকায় গড়ে ওঠা এই জনপদ আয়তনে খুব বড় না হলেও এর রয়েছে সমৃদ্ধময় অতীত। এখানে রয়েছে কেরু এন্ড কোং এর মত ঐতিহ্যবাহী প্রতিষ্ঠান।

আয়তন ১১৭০.৮৭ বর্গকিঃমিঃ, নিবার্চনী এলাকা ২, মোট জনসংখ্যা ১১,২০,০৯৮জন, উপজেলা ৪টি (চুয়াডাঙ্গা সদর, আলমডাঙ্গা, দামুড়হুদা ও জীবননগর), থানা ৪টি, পৌরসভা ৪টি, ইউনিয়ন ৩৮ টি, মৌজা ৩৭৬টি। 

বাংলাদেশের পশ্চিমাঞ্চলের একটি ছোট জেলা চুয়াডাঙ্গা। দেশ ভাগের আগে ব্রিটিশ শাসনামলে এই জেলা ভারতের পশ্চিমবঙ্গের নদীয়া জেলার অন্তর্ভুক্ত ছিল। ১৯৪৭ সালে দেশ ভাগের পর ভারতের নদীয়া জেলার কৃষ্ণনগর থানা বাদে বাকি সব অংশ কুষ্টিয়ার অধীনে চলে আসে। স্বাধীনতার পর ১৯৮৪ সালে বৃহত্তর কুষ্টিয়া ভেঙ্গে চুয়াডাঙ্গা জেলায় রুপ নেয়। জনশ্রুতি আছে, এ অঞ্চলের মল্লিক বংশের আদিপুরুষ চুঙো মল্লিকের নামেই এই জায়গার নাম হয়েছে চুয়াডাঙ্গা। ১৭৪০ সালে চুঙো মল্লিক ভারতের ইটেবাড়ি থেকে এখানে এসে পরিবার নিয়ে বসবাস শুরু করে। তার সঙ্গে ছিল স্ত্রী তিন ছেলে ও এক মেয়ে। এভাবে গ্রামের পত্তন সেখান থেকেই চুঙো ডাঙ্গা দীর্ঘ কালক্রমে যা এখন চুয়াডাঙ্গা নাম হয়েছে।

লোকসংস্কৃতি ও গ্রামীণ ঐতিহ্য সুপ্রাচীন। এক সময় মুর্শিদী, মারফতি, যাত্রা, ভাসান, কবিগান, কীর্তন, জারি গান, গাজারী গীত, গাজনের গান, মাদার পীরের গান, মেয়েলী গীত, বিয়ের গান, কৃষকের মেঠোগান, প্রভৃতি গ্রামগুলো মুখরিত করে রাখত।এ জেলা মুসলমান ফকির ও বাউলপন্থী হিন্দু বৈষ্ণব প্রমুখের ধর্ম সাধনার একটি কেন্দ্রস্থল। লালনের বহুসংখ্যক অনুসারী ও গোসাই গোপাল ও অপরাপর অনেক বাউলপন্থী রসিক বৈষ্ণবের বাস ও বিচরণ স্থান এই চুয়াডাঙ্গা।

জলাশয় প্রধান নদী: মাথাভাঙ্গা, ভৈরব, চিত্রা, নবগঙ্গা, কুমার। ভান্ডারদহ বিল, উজলপুর বিল, মাহেশ্বরী বিল, নেহালপুর বিল, ঝাঝরি বিল, নুরুল্লাপুর বিল এবং বেগমপুর ও চাঁদপুর বাওড় উল্লেখযোগ্য।

দর্শনীয় স্থান

  • পুলিশ পার্ক – পুলিশ সুপার-এর কার্যালয় সংলগ্ন;
  • দত্তনগর কৃষি খামার, জীবননগর
  • শিশু স্বর্গ – ফেরি ঘাট রোড
  • নাটুদহের আট কবর – মুক্তিযুদ্ধে শহীদ আটজন বীর মুক্তিযোদ্ধার কবর;
  • কেরু সুগার মিলস এন্ড ডিস্টিলারি – দর্শনা;
  • তিন গম্বুজবিশিষ্ট চুয়াডাঙ্গা বড় মসজিদ;
  • ঘোলদাড়ি জামে মসজিদ (১০০৬ খ্রিস্টাব্দ) – আলমডাঙ্গা উপজেলার ঘোলদাড়ি গ্রামে;
  • তিয়রবিলা বাদশাহী মসজিদ – আলমডাঙ্গা উপজেলার খাসকররা ইউনিয়নের তিয়রবিলা গ্রাম;
  • ঠাকুরপুর মসজিদ;
  • শিবনগর মসজিদ;
  • জামজামি মসজিদ;
  • আট কবর- দামুড়হুদা
  • হাজারদুয়ারি স্কুল – দামুড়হুদা;
  • নীলকুঠি – কার্পাসডাঙ্গা ও ঘোলদাড়ি;
  • আলমডাঙ্গা রেলওয়ে স্টেশন – ব্রিটিশ আমলে নীলকুঠি হিসেবে ব্যবহৃত হত;
  • খাজা মালিক উল গাউস-এর মাজার – তিতুদহ ইউনিয়নের গড়াইটুপি গ্রাম।

কৃতি ব্যক্তিত্ব

  • আবু আফজাল সালেহ- কবি,প্রাবন্ধিক, কলামিস্ট ও ভ্রমণফিচার লেখক।
  • মীর্জা সুলতান রাজা- রাজনীতিবিদ ও সমাজসেবক,মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক, সাবেক সংসদ সদস্য।
  • সোলায়মান হক জোয়ার্দার (সেলুন) – বিশিষ্ট রাজনীতিবিদ ও সংসদ সদস্য ও মাননীয় হুইপ।
  • মোঃ মোজাম্মেল হক শিল্পপতি – বিশিষ্ট রাজনীতিবিদ ও শিল্পপতি, সাবেক সংসদ সদস্য।
  • আলী আজগর টগর-সংসদ সদস্য চুয়াডাঙ্গা-২
  • আবু হান্নান (বিশিষ্ট ইসলামিক চিন্তাবিদ ও গবেষক)।
  • হারুনুর রশীদ (বীর প্রতীক) – খেতাবপ্রাপ্ত শহীদ বীরপ্রতীক।
  • খোদা বক্স সাঁই – (গীতিকার সুরকার ও গায়ক – ১৯৯১ সালে একুশে পদকপ্রাপ্ত
  • অনন্তহরি মিত্র (১৯০৬ – ২৮ সেপ্টেম্বর ১৯২৬) – ভারতীয় উপমহাদেশের ব্রিটিশ বিরোধী স্বাধীনতা আন্দোলনের একজন অন্যতম ব্যক্তিত্ব এবং অগ্নিযুগের শহীদ বিপ্লবী।
  • বেবী ইসলাম- প্রখ্যাত আলোকচিত্রী, চিত্রগ্রাহক ও চলচ্চিত্র পরিচালক (তিনবার শ্রেষ্ঠ চিত্রগ্রাহকের জন্য জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার লাভ করেন)।

 

কিভাবে যাবেন?

রাজধানী ঢাকা থেকে সড়কপথে ২৩৭ কিমি দুরুত্ব। আন্তঃজেলা বাস যোগাযোগব্যবস্থা আছে।

বাস : ঢাকা, চট্রগ্রাম, খুলনা, বরিশাল, যশোর, কুষ্টিয়া, ঝিনাইদহ, মাগুরা, রাজবাড়ী, ফরিদপুর, মেহেরপুর। 

 উল্লেখযোগ্য বাসের নামটেলিফোন নং
চুয়াডাঙ্গা ডিলাক্স০১৭১১৮০১২৮১, ৬২৩৬০
পূর্বশা পরিবহন০১৭১৯৯৬৯৫৩৬, ৬২৪৮৪
জে,আর পরিবহন০১৭১১১৩১১২৫, ৬২৬৯৯
শ্যামলী পরিবহন৬৩০৯০
 রয়েল এক্সপ্রেস০১৭৭৫১১৩৩২১

আকাশপথ- ঢাকা টু যশোর বিমানবন্দর হয়ে সড়কপথে যাওয়া যায়।

 

হোটেল ও আবাসনের তালিকা

ক্রমিকনামপরিচালনাকারী/মালিকের নামহোটেল/মোটেল/রেস্তোরাঁ/রেস্ট হাউজ/গেস্ট হাউজ/ডাকবাংলো ইত্যাদির ঠিকানামোবাইল নং
হোটেল ও আবাসনের ধরণঃ
সানড্রিয়ান হোটেল এন্ড রেস্টুরেন্টমো: শওকত হোসেনরূপসা সিনেমা হল পাড়া চুয়াডাঙ্গা০১৯১৯৯৭০৩৫৫
হোটেল অবকাশ (আবাসিক)প্রোঃ আবু মোতালেব জেয়ার্দারশহীদ আবুল কাশেম সড়ক চুয়াডাঙ্গা। ফোন: ০৭৬১-৬২২৮৮০১৭১৬৯৩৬২০১
হোটেল সোনার বাংলামো: শহিদুল হকদর্শনা রেল বাজার চুয়াডাঙ্গা০১৭১৪৮১২৫২৭
হোটেল সুরমাআব্দুল খালেকদর্শনা রেল বাজার চুয়াডাঙ্গা০১৭১১৯৩৯৬৯৭
হোটেল আল-আমীনআব্দুল মতিন ভুইঁয়াদর্শনা রেল বাজার চুয়াডাঙ্গা০১৭১৫৪৯৯৬৭০
হোটেল আল-মেরাজহারুন-উর-রশিদমুক্তিপাড়া চুয়াডাঙ্গা০১৭২১৬৫৬৪৪৯
অন্তুরাজ আবাসিক হোটেলসিদ্দিক জামান নান্টুরেল স্টেশনের পশ্চিম দিকে চুয়াডাঙ্গা০৭৬১৬২৭০২
প্রিন্স আবাসিক হোটেলমোছা; জিন্নাতুননেছাফেরীঘাট রোড চুয়াডাঙ্গা০৭৬১৬২৩৭৮
হোটেল সালাউদ্দিনমো: হামিদুল হকদর্শনা রেল বাজার চুয়াডাঙ্গা
১০হোটেল অবসরমোছা; সাহারজান খাতুনশহীদ আবুল কাসেম সড়ক চুয়াডাঙ্গা০৭৬১৬২৪০৫
১১শয়ন বিলাস আবাসিক হোটেলএ এন এম আরিফ এন্ড ব্রাদার্সশহীদ আবুল কাসেম সড়ক চুয়াডাঙ্গা০৭৬১৬৩৭৭৮
১২খান আবাসিক হোটেলমো: আনিছুজ্জামান খাঁনখান সুপার মার্কেট জীবননগর চুয়াডাঙ্গা০১৭১৮৬৬১৫১৩
১৩মিজান আবাসিক হোটেলমো: ইব্রাহিম প্রামানিকআলমডাঙ্গা চুযাডাঙ্গা০১৭১১৪৪৩০৮১
হোটেল ও আবাসনের ধরণঃ বেসরকারী
হোটেল অবকাশ (আবাসিক)প্রোঃ আবু মোতালেব জেয়ার্দারশহীদ আবুল কাশেম সড়ক চুয়াডাঙ্গা। ফোন: ০৭৬১-৬২২৮৮০৭৬১-৬২২৮৮
হোটেল আল মেরাজ (আবাসিক)প্রোঃ মোঃ হারুন-উর-রশিদমুক্তিপাড়া, কোট রোড, চুয়াডাঙ্গা ফোন: ০৭৬১-৬২৩৮৩০৭৬১-৬২৩৮৩
অন্তুরাজ আবাসিক হোটেলপ্রোঃ সিদ্দিক জামান নান্টুস্টেশন রোড, চুয়াডাঙ্গা ফোন: ০৭৬১-৬২৭০২০৭৬১-৬২৭০২

 

Share this post

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to Posts
error: Content is protected !!