বিচ্ছিন্ন দ্বীপ ঢালচর

Back to Posts

বিচ্ছিন্ন দ্বীপ ঢালচর

অপার সৌন্দর্যের লীলাভূমি ঢালচর ভোলা জেলার চরফ্যাশন উপজেলার একটি ইউনিয়ন। প্রাকৃতিক সৌন্দর্যে সজ্জিত ঢালচর মূলত একটি বিচ্ছিন্ন দ্বীপ। যার বিশাল একটি অংশ ম্যানগ্রোভ বন, চারপাশে দাঁড়িয়ে সারি সারি কেওড়া গাছ, পশ্চিমে দৃষ্টিনন্দন তারুয়া সৈকত, এখানেই দেখা মিলবে চকচকে সাদাবালি আর লাল কাঁকড়ার লুকোচুরি। পাশাপাশি দেখা যাবে, সূর্যোদয় ও সূর্যাস্তের অপরূপ দৃশ্য।

বছরজুড়ে তারুয়ায় পাঁচ কিলোমিটার জুড়ে হরেকরকম পাখির কলোকাকলীতে সরব থাকলেও শীতে যেন নতুন প্রাণ পায় এ অঞ্চলের পাখিরা। আবার এদের সঙ্গে যোগ হয় সাইব্রেরিয়াসহ পৃথিবীর অন্যান্য অঞ্চল থেকে আগত বিভিন্ন প্রজাতির পাখির দল। হাজারো প্রকৃতিপ্রেমীককে আকৃষ্ট করে তারুয়া দ্বীপের এসব বিচিত্র বর্ণিল পাখিরা।

শুনশান নিভৃতে, দ্বীপাঞ্চলে, সমুদ্রতটে যারা কয়েকটি দিন কাটাতে চান কিংবা যারা ক্যাম্পিং করতে পছন্দ করেন, তাদের জন্য ঢালচর একটি আদর্শ স্থান। এখানকার পশু চারণভূমি দেখলে মনে হবে বিশাল আকারের কোন গলফ মাঠ।

আয়তন ও অবস্থান

ঢালচর ইউনিয়নের আয়তন ৫,১৮২ একর। এটি ভোলা সদর থেকে প্রায় ১২০ কিলোমিটার দক্ষিণে চরফ্যাশন উপজেলার সর্বদক্ষিণের অবস্থিত ইউনিয়ন যার তিন পাশে মেঘনা নদী এবং এক পাশে বঙ্গোপসাগর। ঢালচরের দক্ষিণে বঙ্গোপসাগর, পশ্চিম-উত্তরে চর কুকরী মুকরী, পূর্বে নতুন ঢালচর। মোট জনসংখ্যা ৭,৪৩৬ জন। এটি জাতীয় সংসদের ১১৮নং নির্বাচনী এলাকা ভোলা-৪ এর অংশ। ঢালচর ইউনিয়নের লোকদের প্রধান পেশাগুলোর মধ্যে রয়েছে মৎস্য শিকার, কৃষি ও পশু পালন। এ ইউনিয়ন থেকে শুটকি মাছ এবং ইলিশ সহ অন্যান্য মাছ রপ্তানি হয়।

যাতায়াত

ঢাকার সদরঘাট থেকে ফারহান ৫ অথবা ৬ এবং তাশরিফ ৪ অথবা ৩ একই দিনে যথাক্রমে সন্ধ্যা ৭টা ৪৫মিনিটে এবং রাত ৮টা ৩০মিনিটে বেতুয়ার উদ্দেশ্যে ছেড়ে যায়। ডেক ভাড়া জনপ্রতি ১৫০টাকা মাত্র। বেতুয়া লঞ্চঘাট থেকে ব্যাটারিচালিত অটোরিকশা করে চরফ্যাশন উপজেলা। ভাড়া জনপ্রতি ৩০টাকা। চরফ্যাশন থেকে বাসে করে চর দক্ষিণ আইচা। ভাড়া জনপ্রতি ৩০টাকা। চর দক্ষিণ আইচা থেকে ব্যাটারি চালিত অটোরিকশায় কচ্ছপিয়া ঘাট। ভাড়া জনপ্রতি ১০টাকা। (আপনি চাইলে বেতুয়া লঞ্চঘাট থেকে মোটর সাইকেল ভাড়া করে সরাসরি কচ্ছপিয়া ঘাট চলে আসতে পারেন। সেক্ষেত্রে এক মোটর সাইকেলে যাত্রী হিসেবে ২জন চড়তে পারবেন। ২জনের রিজার্ভ ভাড়া ২৫০টাকা।) কচ্ছপিয়া ঘাট থেকে বিকেল ৩টায় সারাদিনে মাত্র ১টি লঞ্চ ঢালচরের উদ্দেশ্যে ছেড়ে যায়। ভাড়া জনপ্রতি ৭০টাকা।

ভোলা থেকে-  প্রথমে চর ফ্যাশন এর চর ক্চ্ছপিয়াতে যেতে হবে। সেখান থেকে ট্রলার, নৌকা আথবা ছোট ছোট লঞ্চ দিয়ে ঢাল চর যাওয়া যায়।

খাবার

মহিষের দুধের ছানা ঢালচরের বেশ ঐতিহ্যবাহী একটি খাবার। তাছাড়া পাবেন, মহিষের দুধে তৈরি দই, রসগোল্লা। প্রাণভরে সামুদ্রিক মাছ খেতে পারেন। রূপালী ইলিশ, খালের টাটকা গলদা চিংড়ী, জালি ডাব, নারকেল দিয়ে রান্না করা কাঁকড়া, খেজুরের রস ইত্যাদি।

রাত্রীযাপন

ঢালচরের স্থানীয় মানুষজন খুবই অতিথিপরায়ণ। আপনি চাইলে এমন কোন পরিবারের সাথে কথা বলে তাদের সাথে থাকতে পারেন। তাছাড়া ঢালচর বাজার ঘাটে ইউনিয়ন পরিষদের একটি গেস্ট হাউজ আছে। পূর্বানুমতি নিয়ে এখানেও থাকতে পারেন। সবচেয়ে ভালো হয়, ক্যাম্প করে থাকলে। এটা বেশ মজার এবং এডভেঞ্চারের দুর্দান্ত স্বাদ পাওয়া যায় এতে।

দর্শনীয় স্থান 

তারুয়া সৈকত, ম্যানগ্রোভ বন, গো চারণভূমি, জেলে নৌকায় চড়ে মৎসাভিযান, বনের মহিষ, শেয়ালের হুক্কা-হুয়া কোরাস, হাজারও অতিথি পাখি।

তাড়ুয়া ম্যানগ্রোভ বনাঞ্চল : এ ঢালচরের ৩১.৩১ বর্গ কিলোমিটারের মধ্যে প্রায় ২৮.২০ বর্গ কিলোমিটার জুড়ে বনাঞ্চল। এর মধ্যে তাড়ুয়ার বন অন্যতম। এই তাড়ুয়া বনে রয়েছে গেওয়া, গড়ান, কেওড়া, বাইন, রেইনট্রিসহ বিভিন্ন প্রজাতির মূল্যবান গাছ। কোনো হিংস্র পশুর ভয় না থাকলেও বনে রয়েছে শিয়াল, বন বিড়াল, হরিণ, সাপসহ বিভিন্ন প্রজাতির প্রাণি। এই বাগানের মধ্য দিয়ে বয়ে যাওয়া সরু রাস্তা ধরে হাঁটতে হাঁটতে একটু ভেতরে প্রবেশ করলেই মনে হবে এ যেন আরেক ভুবন।

তাড়ুয়া সমুদ্র সৈকত: বিশাল সমুদ্রের বিস্তীর্ণ জলরাশি, তাড়ুয়ার সাদা বালির সৈকতে দেখা মিলবে নোনা পানির ঢেউ। সেখানে সাদা বালি আর নোনা পানির স্বাদ পাওয়া যাবে কক্সবাজার অথবা কুয়াকাটা সৈকতের। পাশাপাশি সৈকতে দেখা মিলবে লাল কাঁকড়ার। বালির ওপরে ছোট ছোট পা দিয়ে দৌড়ে চলে এসব লাল কাঁকড়ার দল। মানুষের অবস্থান টের পেলে এরা চোখের নিমিষেই লুকিয়ে পড়ে বালির গর্তে।

সূর্যোদয় ও সূর্যাস্ত : দিনের প্রথম প্রহরে তাড়ুয়া সৈকতে দাঁড়ালে দেখা যাবে সমুদ্র থেকে ভেসে ওঠা লাল টকটকে সূর্য। সিঁড়ি বেয়ে একপা দু’পা করে আকাশের পথে যাচ্ছে। আবার সন্ধ্যায় দেখা মিলবে সমুদ্রের ঢেউ- সঙ্গে সেই সূর্যের মিশে যাওয়ার দৃশ্য।

 

তথ্য সহযোগিতার প্রয়োজনে যোগাযোগ:  মো:মনিরুল ইসলাম, উদ্যোক্তা, ঢালচর ইউনিয়ন ডিজিটাল সেন্টার, চরফ্যাশন, ভোলা। মোবাইল- 01735864929 

Share this post

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to Posts
error: Content is protected !!