সিল্ক হ্যাভেন – রাজশাহী

সিল্ক হ্যাভেন – রাজশাহী

বাংলাদেশের উত্তরাঞ্চলে অবস্থিত রাজশাহী এক ইতিহাসখ্যাত নগরী। প্রাচীন পুন্ড্রবর্ধন জনপদের অংশ রাজশাহীর জনবসতি হাজার বছরের ঐতিহ্য বহন করছে। মৌর্য, গুপ্ত, পাল, সেন, মোগল, ইংরেজরা এ অঞ্চলে শাসন প্রতিষ্ঠা করেন। এ অঞ্চলে রাজারাজড়াদের অবাসস্থলকে কেন্দ্র করে নাম হয়েছে রাজশাহী। পঞ্চদশ শতকে ভাতুরিয়া দিনাজপুরের জমিদার রাজা কংস বা গনেশ এ অঞ্চলের অধিপতি ছিলেন। তিনি রাজা শাহ নামে পরিচিতি ছিলেন। মনে করা হয় ‘রাজা’ আর ‘শাহ’ মিলে রাজশাহী নামকরণ হয়েছে।

এ শহরের নিচ দিয়ে বয়ে গেছে একদা প্রমত্তা পদ্মার প্রাণলীলা। শহরের দক্ষিণে পদ্মার বিশালতা হাতছানি দেয়। শহরের পূর্ব-পশ্চিম-উত্তর আম্রকানন দিয়ে পরিবেষ্টিত। এখানকার জনগোষ্ঠীর প্রধান পেশা কৃষি। রাজশাহী রেশম সুতা ও রেশমবস্ত্র তৈরির জন্য বিখ্যাত। ১৯৭৭ সালে রাজশাহীতে রেশম বোর্ড স্থাপিত হয়। অন্যান্য কুটিরশিল্পের মধ্যে তাঁত, বাঁশ ও বেত, স্বর্ণকার, কামার, কুমার, কাঠের কাজ, কাঁসা, সেলাই, বিড়ি উল্লেখযোগ্য।

রাজশাহী জেলা বাংলাদেশের উত্তরাঞ্চলের একটি জেলা। এই জেলাটি রাজশাহী বিভাগের অন্তর্গত। রাজশাহী জেলার উত্তরে নওগাঁ জেলা, দক্ষিণে ভারতের পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য, কুষ্টিয়া জেলা ও পদ্মা নদী, পূর্বে নাটোর জেলা, পশ্চিমে চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা। দেশের প্রধানতম নদী পদ্মা এই জেলার সীমান্ত দিয়ে ভারত থেকে বাংলাদেশে প্রবেশ করেছে।

রাজশাহীর লোক সংখ্যা ২৩,৭৭,৩১৪ জন। আয়তন ২৪০৭.০১ বর্গকিলোমিটার। উপজেলা: ৯টি, থানা : ১৩ টি  (মেট্রোপলিটন এলাকায় ৪ টি), ইউনিয়ন: ৭১ টি, পৌরসভা: ১৪ টি, মৌজা: ১,৭১৮ টি, গ্রাম: ১,৯১৪ টি। উপজেলা সমূহ- গোদাগাড়ী, তানোর, মোহনপুর, বাগমারা, দুর্গাপুর, বাঘা, চারঘাট, পবা, পুঠিয়া। প্রধান নদী: পদ্মা, মহানন্দা, শিব। গোদাগাড়ীর পালতোলা বিল এবং চলন বিল উল্লেখযোগ্য।

এই জেলার নামকরণ নিয়ে প্রচুর মতপার্থক্য রয়েছে। তবে ঐতিহাসিক অক্ষয় কুমার মৈত্রেয়র মতে রাজশাহী রাণী ভবানীর দেয়া নাম। অবশ্য মিঃ গ্রান্ট লিখেছেন যে, রাণী ভবানীর জমিদারীকেই রাজশাহী বলা হতো এবং এই চাকলার বন্দোবস্তের কালে রাজশাহী নামের উল্লেখ পাওয়া যায়। পদ্মার উত্তরাঞ্চল বিস্তীর্ন এলাকা নিয়ে পাবনা পেরিয়ে ঢাকা পর্যন্ত এমনকি নদীয়া, যশোর, বর্ধমান, বীরভূম নিয়ে [৪] এই এলাকা রাজশাহী চাকলা নামে অভিহিত হয়। অনুমান করা হয় ‘রামপুর’ এবং ‘বোয়ালিয়া’ নামক দু’টি গ্রামের সমন্বয়ে রাজশাহী শহর গ’ড়ে উঠেছিল। প্রাথমিক পর্যায়ে ‘রামপুর-বোয়ালিয়া’ নামে অভিহিত হলেও পরবর্তীকালে রাজশাহী নামটিই সর্ব সাধারণের নিকট সমধিক পরিচিতি লাভ করে। বর্তমানে আমরা যে রাজশাহী শহরের সঙ্গে পরিচিত, তার আরম্ভ ১৮২৫ সাল থেকে। রামপুর-বোয়ালিয়া শহরের নামকরণ রাজশাহী কী করে হলো তা নিয়ে বহু মতামত রয়েছে। ১৯৮৪ সালে রাজশাহীর ৪ টি মহকুমাকে নিয়ে রাজশাহী, নওগাঁ, নাটোর এবং নবাবগঞ্জ- এই চারটি স্বতন্ত্র জেলায় উন্নীত করা হয়।

দর্শনীয় স্থান

  • রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়
  • পদ্মা নদীর বাঁধ
  • পুঠিয়া রাজবাড়ি
  • রাজশাহী কেন্দ্রীয় চিড়িয়াখানা
  • বরেন্দ্র জাদুঘর
  • জিয়া পার্ক
  • পদ্মা গার্ডেন
  • বাঘা মসজিদ
  • রাজা কংস নারায়ণের মন্দির
  • তামলি রাজার বাড়ি
  • গোয়ালকান্দি জমিদার বাড়ি
  • হাজারদুয়ারি জমিদার বাড়ি

উল্লেখযোগ্য ব্যক্তিত্ব

  • চারু মজুমদার
  • প্রভাসচন্দ্র লাহিড়ী
  • শহীদ এ.এইচ.এম. কামারুজ্জামান রাজনীতিবিদ
  • অক্ষয়কুমার মৈত্রেয়
  • রাণী ভবানী
  • মহারাণী হেমন্ত কুমারী দেবী
  • হাসান আজিজুল হক (কথাসাহিত্যিক)
  • সেলিনা হোসেন (কথাসাহিত্যিক)
  • মাহিয়া মাহী (চিত্রনায়িকা)
  • আনিকুল ইসলাম (ইঞ্জিনিয়ার)
  • মোঃজিএম শাহ্ ( পশ্চিমবঙ্গ মুর্শিদাবাদ)
  • ফজলে হোসেন বাদশাহ (সংসদ সদস্য,রাজশাহী-২)
  • এ.এইচ.এম খায়রুজ্জামান লিটন (সিটি মেয়র)
  • শাহরিয়ার আলম – রাজনীতিবিদ, পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী।
  • আব্দুর রাজ্জাক- ব্রিগেডিয়ার জেনারেল,বাংলাদেশ সেনাবাহিনী।
  • ডা.শরিফ আহম্মেদ(হিরা)- কর্নেল, বাংলাদেশ সেনাবাহিনী।
  • এ্যডঃ লায়েব উদ্দীন লাভলু, যুগ্ন সাধারন সম্পাদক, রাজশাহী জেলা আওয়ামীলীগ।
  • পলান সরকার, সমাজসেবী, সাদা মনের মানুষ।
  • ড. আবুল হাসান, পরিচালক, দুর্নীতি দমন কমিশন, বাংলাদেশ।
  • আলহাজ্ব মো. নাসির উদ্দন সরকার, প্রতিষ্ঠাতা, নাসিরগন্জ ডিগ্রি কলেজ (১৯৯৫) এবং নাসিরগন্জ পোস্ট অফিস (১৯৬৮)।
  • সরদার আমজাদ হোসেন সাবেক মৎস্য ও পশু সম্পদ মন্ত্রী, খাদ্য প্রতিমন্ত্রী, ভূমি মন্ত্রী দায়িত্বপ্রাপ্ত
  • ড.জাহিদ দেওয়ান শামীম,সিনিয়র সাইন্টিস্ট,নিউইয়র্ক ইউনিভার্সিটি স্কুল অব মেডিসিন
  • যুদ্ধাহত বীর মুক্তিযোদ্ধা আলী খাজা এম,এ মজিদ
  • মিজানুর রহমান চঞ্চল, সহকারী পরিচালক, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়; ঢাকা, বাংলাদেশ।

কিভাবে যাবেন

সড়কপথ- ঢাকার গাবতলী, মহাখালী বাস টার্মিনাল ও কলাবাগান বাসস্ট্যান্ড থেকে রাজশাহী জেলার সকল রুটের এসি-ননএসি বাস পাওয়া যায়। এর মধ্যে দেশ ট্রাভেলস, ন্যাশনাল ট্রাভেলস, হানিফ এন্টারপ্রাইজ, তুহিন এলিট, গ্রামীণ ট্রাভেলস উল্লেখযোগ্য।

  • দেশ ট্রাভেলস, ☎ ০১৭৪৬ ৪৭৪৭৮০
  • ন্যাশনাল ট্রাভেলস, ☎ ০১৭২৭ ৫৪৫৪৬০
  • হানিফ এন্টারপ্রাইজ, ☎ ০১৭২০ ২১৪৭৮৫
  • তুহিন এলিট, ☎ ০১৯১৪ ৯৯৫৫২১
  • গ্রামীণ ট্রাভেলস, ☎ ০১৭০১ ৬৮৬৩২০
  • শ্যামলী পরিবহণ, ☎ ০২ ৯১২৪১৩৯
  • একতা পরিবহণ, ☎ ০১৭১২ ২৮৭৭৩০

রেলপথে- ঢাকার কমলাপুর রেলস্টেশন ও বিমানবন্দর রেলস্টেশন থেকে রাজশাহীগামী ৩ টি রেল প্রতিদিন যাওয়া-আসা করে। রেলগুলোতে শোভন চেয়ার, স্নিগ্ধা এবং এসি আসনের মূল্য যথাক্রমে ৩১৫, ৬০৪ এবং ৭২৫ টাকা।

ঢাকা হইতে রাজশাহীগামী আন্তঃনগর ট্রেনের সময়সূচীঃ

  • ট্রেন নং নাম        বন্ধের দিন           হইতে    ছাড়ে     গন্তব্য
  • ৭৫৩     সিল্কসিটি এক্সপ্রেস          রবিবার ঢাকা      ১৪৪০   রাজশাহী
  • ৭৫৯      পদ্মা এক্সপ্রেস    মঙ্গলবার             ঢাকা      ২৩১০   রাজশাহী
  • ৭৬৯     ধূমকেতু এক্সপ্রেস            শনিবার ঢাকা      ০৬০০  রাজশাহী

 

আকাশ পথ

রাজশাহী বিভাগে অবস্থিত একমাত্র বিমান বন্দর ‘শাহ মখদুম বিমানবন্দর’ রাজশাহীতে অবস্থিত। শুধু আভ্যন্তরীন রুটের উড়োজাহাজ উঠা-নামা করে। বর্তমানে শুধু রাজশাহী-ঢাকা-রাজশাহী রুটে চলাচল করে। বিমান বাংলাদেশ, নভোএয়ার ও ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্স এই রুটে সেবা দিয়ে থাকে। বিমান ও সময়ভেদে একপথে ভাড়া ৩২০০ থেকে ৫০০০ টাকা।

রাত্রী যাপন

  • পর্যটন মোটেল, বাংলাদেশ পর্যটন কর্পোরেশন, রাজশাহী ☎ ০৭২১৭৭৫২৩৭
  • হোটেল নাইস ইন্টানন্যাশনাল, গণকপাড়া, সাহেব বাজার, রাজশাহী ☎ ০৭২১৭৭৬১৮৮
  • হোটেল হক্স ইন, শিরোইল, বোয়ালিয়া রাজশাহী, রাজশাহী ☎ ০৭২১৮১০৪২০
  • হোটেল ডালাস ইন্টারন্যাশনাল, বিন্দুর মোড়, রাজশাহী ☎ ০৭২১৭৭৩৮৩৯
  • হোটেল মুক্তা ইন্টারন্যাশনাল, গণক পাড়া,বাটারমোড়, রাজশাহী ☎ ০৭২১৭৭১১০০
  • চেজ রাজ্জাক সার্ভিস, পদ্মা আবাসিক এলাকা, রাজশাহী ☎ ০৭২১৭৬২০১১
  • হোটেল আনাম, সাহেব বাজার, মালোপাড়া, রাজশাহী ☎ ৭৭৩৭৪০

Share this post

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *


error: Content is protected !!